দেশে আরো ৯৫৪ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৫৮ জনের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায়। এ সময়ের মধ্যে মারা গেছে আরো তিনজন। সব মিলিয়ে দেশে এ পর্যন্ত আট হাজার ৩১৩ জনের নমুনা পরীক্ষা করে করোনাভাইরাস পাওয়া গেছে মোট ৪৮২ জনের মধ্যে। এদের মধ্যে মারা গেছে ৩০ জন এবং সুস্থ হয়ে বাড়ি গেছে ৩৬ জন। গতকাল শনিবার বিকেলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নিয়মিত বুলেটিনে এসব তথ্য জানানো হয়েছে।

ভার্চুয়াল বুলেটিনে বিভিন্ন তথ্য জানান স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ এবং রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের (আইইডিসিআর) পরিচালক অধ্যাপক ড. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা।

বুলেটিনে জানানো হয়, এ পর্যন্ত সর্বমোট যে ৪৮২ জনের দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে তাদের মধ্যে বেশির ভাগেরই বয়স ৩১ থেকে ৪০ বছর, যা শতকরা ২২ ভাগ। ২১ থেকে ৩০ বছর বয়সের শতকরা ১৯ ভাগ এবং ৪১ থেকে ৫০ বছরের আছে শতকরা ১৯ ভাগ। এর মধ্যে পুরুষ ৭০ শতাংশ এবং নারী ৩০ শতাংশ। এ ছাড়া জানানো হয়, ২৪ ঘণ্টায় যে তিনজন মারা গেছে তাদের মধ্যে দুজন ঢাকার বাইরের এবং একজন ঢাকার। তাদের বয়স যথাক্রমে ৩৮, ৫৫ ও ৭৪ বছর। অন্যদিকে একই সময়ের মধ্যে তিন জন সুস্থ হয়েছে, যাদের মধ্যে দুজন পুরুষ ও একজন নারী।

অন্যদিকে মোট শনাক্ত ৪৮২ জনের মধ্যে শতকরা ৫২ ভাগ ঢাকা শহরের বলেও জানানো হয়।

বুলেটিনে বলা হয়, আগামী কয়েক দিনের মধ্যে দেশের ১৩-১৪ হাজার কমিউনিটি ক্লিনিকের স্বাস্থ্যকর্মীদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে প্রয়োজনমতো করোনা সন্দেহে চিকিৎসা নিতে আসা মানুষের সেবা দিতে। সেই সঙ্গে পরীক্ষার পরিধিও আরো বাড়ানো হবে।

নারায়ণগঞ্জের সিভিল সার্জন আক্রান্ত : আমাদের নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি জানান, নারায়ণগঞ্জের সিভিল সার্জন ডা. মুহাম্মদ ইমতিয়াজ করোনায় আক্রান্ত হয়ে আইসোলেশনে আছেন। দুই দিন আগে তাঁর নমুনা সংগ্রহের পর গতকাল দুপুরে পাওয়া রিপোর্টে তাঁর করোনা পজিটিভি মিলেছে। এর আগে জেলার করোনা ফোকাল পারসন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনাবিষয়ক কর্মকর্তা ডা. জাহিদুল ইসলাম করোনায় আক্রান্ত হন। তিনি নিজ বাড়িতে আইসোলেশনে আছেন। সিভিল সার্জন মোহাম্মদ ইমতিয়াজ টেলিফোনে বলেন, ‘এখন সুস্থ অনুভব করছি কিছুটা। বাড়িতেই আছি চিকিৎসা নিচ্ছি। ফোনে যতটুকু সম্ভব দায়িত্ব পালন করছি।’

নারায়ণগঞ্জ ১৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার (আরএমও) মো. আসাদুজ্জামান বলেন, ‘করোনায় আক্রান্তদের সংস্পর্শে আসার পর থেকেই তিনি (সিভিল সার্জন) কোয়ারেন্টিনে ছিলেন। এর মধ্যে অসুস্থ বোধ করলে দুই দিন আগে তাঁর নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়। শনিবার আইইডিসিআর থেকে পাঠানো রিপোর্টে পজিটিভ পাওয়া গেছে। তবে তিনি সুস্থ আছেন।’

গাজীপুরে ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত ৫ : গাজীপুর থেকে নিজস্ব প্রতিবেদক জানান, গাজীপুরে গত ৪৮ ঘণ্টায় দুই শিশুসহ ৯ জনের দেহে করোনাভাইরাস পাওয়া গেছে। এদের মধ্যে গতকাল সকাল ৮টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় পাঁচজনের দেহে করোনাভাইরাস পাওয়া যায়। এ নিয়ে জেলায় মোট ১১ জনের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হলো।

গাজীপুরের সিভিল সার্জন ডা. মো. খায়রুজ্জামান জানান, গত শুক্রবার ২৫ জনের নমুনা ঢাকায় পাঠানো হয়েছিল। গতকাল আইইডিসিআর থেকে পাঠানো প্রতিবেদন অনুযায়ী পাঁচজনের শরীরে করোনাভাইরাস পজিটিভ এসেছে। ওই পাঁচজনের মধ্যে তাঁর অফিসের নৈশপ্রহরীও আছেন।

করিমগঞ্জে একই পরিবারের তিনজন আক্রান্ত : কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি জানান, জেলার করিমগঞ্জ উপজেলার কাদিরজঙ্গল ইউনিয়নের মুসলিমপাড়া গ্রামের এক ব্যবসায়ী গত ৬ এপ্রিল ভোরে জ্বর ও শ্বাসকষ্টে মারা যান। পরে নমুনা পরীক্ষায় কোভিড-১৯ পজিটিভ ধরা পড়ে। কিশোরগঞ্জ জেলায় এটি ছিল প্রথম করোনা শনাক্ত। এবার নতুন করে করোনা শনাক্ত হয়েছেন মারা যাওয়া ব্যবসায়ীর পরিবারের তিন সদস্য। তাঁর মা, ভাই ও স্ত্রীর নমুনায় কোভিড-১৯ পজিটিভ ধরা পড়েছে।

গতকাল দুপুরে কিশোরগঞ্জের সিভিল সার্জন ডা. মো. মুজিবুর রহমান ওই পরিবারের তিন সদস্যের করোনা শনাক্তের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।