ঢাকা ফেরত এক প্রবাসী ব্যবসায়ীর মৃত্যুর পর নমুনা পরীক্ষায় ওই ব্যবসায়ী এবং তার স্ত্রী, মা ও ভাইয়ের শরীরে করোনা সংক্রমণ ধরা শনিবার রাতে উপজেলা লকডাউন ঘোষণা করা হয়।

এবার এক চিকিৎসকের শরীরে করোনাভাইরাসের উপসর্গ দেখা দেয়ায় রোববার বিকালে করিমগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ১৪ চিকিৎসকের সবাইকে কোয়ারেন্টিনে পাঠালো স্বাস্থ্য বিভাগ।

কিশোরগঞ্জের জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির সদস্য সচিব সিভিল সার্জন ডা. মুজিবুর রহমানএ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এ সময় তিনি জানান, এইসব চিকিৎসকগণ করিমগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সংলগ্ন সরকারি কোয়ার্টারেই কোয়ারেন্টিনে থাকবেন।

এ ছাড়া তাদের শূন্যতা পূরণের জন্য সেখানে চিকিৎসক পাঠানোর প্রক্রিয়া চলছে।

উল্লেখ্য, এর আগে এ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্মরত এক চিকিৎসকের কিশোরগঞ্জ শহরে অবস্থানরত স্বামীর শরীরেও নমুনা পরীক্ষায় করোনাভাইরাস সংক্রমণের প্রমাণ মিলে।