দেশের চার পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের ল্যাবরেটরিতে হবে করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) শনাক্তকরণ পরীক্ষা। ইতিমধ্যে করোনাভাইরাস শনাক্তকরণ পরীক্ষার অনুমতি পাওয়া বিশ্ববিদ্যালয়গুলো হলো- ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি অ্যান্ড অ্যানিম্যাল সায়েন্স বিশ্ববিদ্যালয়, যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় এবং শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘চারটি বিশ্ববিদ্যালয়ে করোনা শনাক্তকরণ পরীক্ষার অনুমতি দেওয়া হয়েছে। এখন এই ল্যাবরেটরিগুলোতে কিট পাঠানো হবে। এরপর পরীক্ষা শুরু হবে।’

জানা যায়, দেশে বর্তমানে ১৭টি ল্যাবরেটরিতে করোনা শনাক্ত করা হচ্ছিলো। এই চার বিশ্ববিদ্যালয়ের ল্যাবরেটরি অনুমতি পাওয়ায় সেই সংখ্যা এখন ২১টিতে দাঁড়ালো।

এর আগে দেশের ১১টি সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে রিয়েল টাইম পিসিআর মেশিন রয়েছে বলে শিক্ষা মন্ত্রণালয় হতে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়কে জানানো হয়। এরপরই আপাতত চারটি বিশ্ববিদ্যালয়ে পরীক্ষা শুরুর উদ্যোগ নেয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. মাহবুব হোসেন বলেন, ‘সংকটকালীন মুহূর্তে বেশকিছু বিশ্ববিদ্যালয় করোনাভাইরাসের রোগী শনাক্তকরণের কাজ করতে আগ্রহ প্রকাশ করেছে। ডিমান্ড বাড়লে বাকি সাতটি বিশ্ববিদ্যালয় যেখানে রিয়েল টাইম পিসিআর মেশিন রয়েছে, সেখানেও করোনা ভাইরাসের রোগী শনাক্তকরণের উদ্যোগ নেওয়া হবে।’

এদিকে হাসপাতাল বা নির্দিষ্ট পরীক্ষাগারের বাইরে বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (যবিপ্রবি) জিনোম সেন্টারে করোনাভাইরাসের পরীক্ষা শুরু হতে যাচ্ছে। পার্সোনাল প্রটেকটিভ ইকুইপমেন্ট (পিপিই), কিট ও রোগীর নমুনা সরবরাহ করা হলে তারা আগামী তিন-চার দিনের মধ্যেই পরীক্ষা শুরু করা যাবে বলে জানিয়েছেন যবিপ্রবির উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আনোয়ার হোসেন।

ড. মো. আনোয়ার হোসেন কালের কণ্ঠকে বলেন, আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০১৯ সালে সংগৃহীত বিশ্বের সর্বাধুনিক প্রযুক্তির পিসিআর মেশিন রয়েছে। একসঙ্গে ৮ ঘণ্টায় এখানে ৯৬ জনের নমুনা পরীক্ষা সম্ভব। বিশ্ববিদ্যালয়ের অণুজীববিজ্ঞান বিভাগের চারজন শিক্ষক করোনাভাইরাসের নমুনা পরীক্ষা করবেন। এ ছাড়া জিন প্রকৌশল ও জৈবপ্রযুক্তি বিভাগের দুজন শিক্ষক ও অণুজীববিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীদের প্রশিক্ষণ দেওয়ার পর তারাও এই গবেষণাগারে কাজ করবেন।