করোনাভাইরাসে সারাবিশ্ব গভীর সংকট ও অনিশ্চয়তার মধ্য দিয়ে যাচ্ছে। এ অবস্থায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিভিন্ন দিক নিয়ে নির্দেশনা দিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী তার ভাষণে মিথ্যার ফানুস ওড়াননি। তিনি অবাস্তব ও কল্পনাপ্রসূত প্রতিশ্রুতিও দেননি বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক সড়ক পবিহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

আজ বৃহস্পতিবার (২৬ মার্চ) এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন তিনি।

তিনি বলেন, বাস্তবতার নিরিখে স্বাভাবিক জীবনের দরজায় কড়া নাড়া অনাকাঙ্ক্ষিত করোনাভাইরাসে সৃষ্ট সংকট মোকাবিলার রূপরেখা ও কর্মপরিকল্পনা তুলে ধরেছেন প্রথানমন্ত্রী।

ওবায়দুল কাদের বলেন, আপনাদের মাধ্যমে দেশের সর্বস্তরের জনগণকে এবং বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সব পর্যায়ের নেতাকর্মীদের জানাই মহান স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা। জাতির অভিভাবক হিসেবে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা স্বাধীনতা দিবসের প্রাক্কালে গতকাল বুধবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় এই সংকট থেকে উত্তরণের জন্য দিক-নির্দেশনা দিয়ে জাতির উদ্দেশে গুরুত্বপূর্ণ ভাষণ দিয়েছেন।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, প্রধানমন্ত্রীর ভাষণে প্রদত্ত দিক-নির্দেশনাগুলো ছিল নির্মোহ, নির্মেদ ও আশা জাগানিয়া। প্রধানমন্ত্রী বাঙালি জাতির নেতা হিসেবে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে পূর্ব প্রস্তুতি ও বর্তমান প্রস্তুতিসহ ভবিষ্যৎ কর্মপরিকল্পনা জাতির সামনে তুলে ধরেছেন। করোনা সংকট মোকাবিলায় কোয়ারেন্টাইন ব্যবস্থা, হাসপাতাল প্রস্তুত ও চিকিৎসা সামগ্রী সরবরাহে সরকার কর্তৃক সম্পন্ন সব কার্যক্রমের কথা তিনি তুলে ধরেছেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, অনাকাঙ্ক্ষিত সংকটের মুখে নিশ্চিত সমাধানে যেখানে সারা বিশ্ব হিমশিম খাচ্ছে, সেখানে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ সরকার সীমাবদ্ধতাকে জয় করতে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে।