দেশে চলছে নভেল করোনা ভাইরাসের কারনে জরুরী অবস্থা,ঠিক এ সময়ে ঢাকার অদুরে সাভারে চলছিল বিয়ের ধুমধাম কার্যক্রম।যেখানে সামাজিক দুরুত্ব বজায় রেখে সকলকে চলতে বলা হচ্ছে, সেখানে ধুমধাম জনসমাগমে চলছিল বিয়ের অনুষ্ঠান।

গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-৪ এর ভ্রাম্যমান আদালত তাৎখনিক উপস্থিত হয়ে বর-কনে উভয়পক্ষকে আর্থিক জরিমানা প্রদান করে বিয়ে বন্ধ করে দেয়া হয়।

আজ শুক্রবার (১০ এপ্রিল) দুপুরে সাভার উপজেলার আমিনবাজার ইউনিয়নের সালেপুর গ্রামে কনের বাড়িতে এ বিয়ের আনুষ্ঠানিকতার সময় র‌্যাব-৪ এর নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আনিসুর রহমানের নেতৃত্বে অভিযান চালানো হয়।এসময় র‌্যাব-৪ এর একটি আভিযানিক দল অভিযান চালিয়ে বর-কনে উভয়পক্ষের আট জনকে ৮০ হাজার টাকা আর্থিক জরিমানা করে বিয়ে বন্ধ করে দেয়।

 

জানা যায়, সালেপুর গ্রামে বিয়ের অনুষ্ঠানটি আমিনবাজার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন ও বনগাঁও ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম এর উপস্থিতিতে অর্ধশতাধিক মানুষের উপস্থিতিতে আনুষ্ঠানিকতা চলছিলো। এ সময়ই র‌্যাবের অভিযানে বন্ধ হয় বিয়ে।

এ ব্যাপারে র‌্যাব-৪ এর নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আনিসুর রহমান জানান, দেশে করোনা ভাইরাস সংক্রমণের এই ভয়াবহ দুঃসময়ে যেখানে জরুরি প্রয়োজন ছাড়া বাইরে বের হওয়া নিষেধ। নির্দিষ্ট সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার কঠোরতা রয়েছে, এমন সময় বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা অকল্পনীয়। এজন্য বর-কনে উভয়পক্ষের ৮ জনকে ৮০ হাজার টাকা জরিমানা করে বিয়ে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

 

তিনি আরও জানান, বিয়ের আসরে উপস্থিত থাকা আমিনবাজার ইউনিয়নের ইউপি চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন ও বনগাঁও ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলামকে সর্তক করে ছেড়ে দেয়া হয়। পাশাপাশি দুই ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানান র‍্যাবের এই নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট।

এ ব্যাপারে মুঠোফোনে আমিনবাজার ইউনিয়নের ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন ও বনগাঁও ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলামের মুঠোফোনে কল করে না পাওয়া এ ব্যাপারে তাদের বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।